ভাসানচরে রোহিঙ্গা শরনার্থী স্থানান্তরের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান/বক্তব্য

ইউ.এস, ডিপার্টমেন্ট অব স্টেট

মুখপাত্রের অফিস

অবিলম্বে প্রকাশ করার জন্য

উপ-প্রধান মুখপাত্র (প্রিন্সিপাল ডেপুটি স্পোকসপারসন) ক্যালে ব্রাউন-এর বিবৃতি

১০ই ডিসেম্বর, ২০২০

 

ভাসানচরে রোহিঙ্গা শরনার্থী স্থানান্তরের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান/বক্তব্য

যুক্তরাষ্ট্র রোহিঙ্গা শরনার্থীদের আশ্রয় দেয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশ সরকারের প্রতিশ্রুতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ভাসানচরে রোহিঙ্গা শরনার্থীদের স্থানান্তর নিরাপদ, স্বেচ্ছায়, মর্যাদাপূর্ণ এবং কোন ধরনের চাপ বা জোর করা ছাড়াই বিস্তারিত জানিয়ে (রোহিঙ্গাদের) সম্মতির ভিত্তিতে নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র ভাসানচরে স্থানান্তরিত শরনার্থীদের স্বাধীনভাবে চলাচলের অধিকার ও বাকি রোহিঙ্গা শরনার্থীরা যে মূল ভূখন্ডে আছেন সেখানে যাতায়াতের সুযোগসহ শরনার্থী হিসেবে রোহিঙ্গাদের অধিকারসমূহ নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে। শরনার্থীদের অবশ্যই শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা ও জীবিকা নির্বাহসহ মৌলিক সেবাসমূহ পেতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্র (ভাসানচরে) শরনার্থীদের স্থানান্তরের নিরাপত্তা, সম্ভাব্যতা ও (শরনার্থীদের কাছে) কাঙ্খিত কিনা তার কারিগরি ও সুরক্ষা সংক্রান্ত বিষয়গুলো জাতিসংঘ এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক ও দেশীয় মানবিক সংস্থাগুলোর মাধ্যমে স্বাধীনভাবে বিস্তারিত মূল্যায়ন করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র রাখাইন রাজ্য সঙ্কটে সাড়াদানকারী অন্যতম শীর্ষ মানবিক সহায়তাকারী হিসেবে ২০১৭ সালের আগস্টে সহিংসতা বৃদ্ধির পর থেকে প্রায় ১.২ বিলিয়ন ডলার মানবিক সহায়তা দিয়েছে, যার মধ্যে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে কর্মসূচি বাস্তবায়নে প্রায় ৯৬২ মিলিয়ন ডলার দেয়া হয়েছে। গত ২২ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্র ইইউ, যুক্তরাজ্য ও ইউএনএইচসিআর-এর সঙ্গে যৌথভাবে “রোহিঙ্গা শরনার্থীদের জন্য টেকসই সহায়তা” শীর্ষক একটি ভার্চুয়াল দাতা সম্মেলনের আয়োজন করেছিল, যেখানে আরো ৩৪টি দেশ অংশগ্রহণ করেছিল এবং ২৫টি দাতার কাছ থেকে প্রায় ৬০০ মিলিয়ন ডলার তহবিল প্রদানের ঘোষণা এসেছে। যুক্তরাষ্ট্র চলমান মানবিক সহায়তা করা ছাড়াও রোহিঙ্গা শরনার্থী ও আভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত মানুষের সমস্যার পূর্ণাঙ্গ সমাধান খুঁজে পেতে সহায়তা করে আসছে।  আমরা বাংলাদেশ সরকারকে এই সঙ্কট মোকাবেলায় ও টেকসই সমাধানের লক্ষ্যে কাজ করা এগিয়ে নিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে সমন্বয় অব্যাহত রাখা নিশ্চিত করার আহ্বান জানাই যাতে করে (এই কাজের জন্য) আমাদের দিক থেকে কার্যকর অর্থায়ন অব্যাহত রাখতে পারি।