ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস ২০২১-২২ গ্লোবাল ইউগ্র্যাড এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের জন্য আবেদন গ্রহণ করছে

গ্লোবাল ইউগ্র্যাড এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম ২০২১-২০২২

আবেদনপত্র জমা দেয়ার সময়সীমা বাড়ানো হয়েছে ১৫ই মার্চ, ২০২১, পর্যন্ত

ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের আমেরিকান সেন্টার গ্লোবাল ইউগ্র্যাড এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রাম’র ঘোষণা দিতে পেরে আনন্দিত। এক সেমিস্টার মেয়াদী স্নাতকপূর্ব এই ডিগ্রিবিহীন বিনিময় কার্যক্রমটি যুক্তরাষ্ট্রের ডিপার্টমেন্ট অফ স্টেট’র ব্যুরো অফ এডুকেশনাল অ্যান্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্স-এর পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত।

গ্লোবাল ইউগ্র্যাড একটি নিবিড় শিক্ষা কার্যক্রম যার লক্ষ্য হলো যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবহারিক শিক্ষা বিনিময় কার্যক্রমে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে স্নাতকপূর্ব শিক্ষার্থী নেতৃবৃন্দকে যুক্তরাষ্ট্রের সমাজ, সংস্কৃতি ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিবিড় সংস্পর্শে আসার সুযোগ দেয়া। এ কার্যক্রমের আওতায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে স্নাতকপূর্ব ডিগ্রিবিহীন পর্যায়ে অধ্যয়নের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের স্বীকৃত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ২০২০ সালের শরৎ (সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর) অথবা ২০২১ সালের বসন্ত (জানুয়ারী – এপ্রিল) সেমিস্টারের জন্য পূর্ণ বৃত্তি প্রদান করা হবে। কম প্রতিনিধিত্বকারী ও সুবিধাবঞ্চিত আবেদনকারীদেরকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে। যেকোন শিক্ষা বিষয়ে অধ্যয়নকারীরাই এর জন্য যোগ্য হবেন। আবেদনকারীদের আগ্রহ, প্রাপ্যতা এবং সেইসাথে ভর্তির সুযোগ ও তহবিল সংস্থানের ভিত্তিতে এক সেমিস্টারের (প্রায় ৪ মাস) জন্য এই বৃত্তি প্রদান করা হবে।

গ্লোবাল ইউগ্র্যাড’র আবেদনকারীদেরকে আমন্ত্রণকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিদ্যমান পাঠ্যক্রম থেকে বাছাইকৃত স্নাতকপূর্ব কোর্সের কাজের জন্য পূর্ণকালীনভাবে ভর্তি করা হবে। এর উদ্দেশ্য হলো শিক্ষার্থীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে বাস্তবিক আদান-প্রদান এবং যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও শ্রেণীকক্ষের সংস্কৃতির সংস্পর্শে আসার পর্যাপ্ত সুযোগ সৃষ্টি করা। তাছাড়া, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নতুন পরিবেশে শিক্ষার্থীদের সফলতা নিশ্চিত করতে সহায়তার জন্য আমন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রাতিষ্ঠানিক গবেষণা ও রচনা, বিশ্লেষণী চিন্তা-ভাবনা, সময় ব্যবস্থাপনা, তথ্য গ্রহণ এবং অধ্যয়ন ও পরীক্ষা দেয়া বিষয়ে যথোপযুক্ত পাঠদান করবে। অংশগ্রহণকারীরা আমেরিকান সহসাথীদের সাথে ক্যাম্পাসে অবস্থান করবে।

সমাজ সেবামূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ বাধ্যতামূলক। তাছাড়া, পাঠদান কার্যক্রম চলাকালে সকল অংশগ্রহণকারীকে শিক্ষানবিশি কার্যক্রমে অংশ নেয়ার সুযোগ দেয়া হবে। শিক্ষানবিশিগুলো হবে অংশগ্রহণকারীদের অধ্যয়নের ক্ষেত্র ও/বা কর্মজীবন পরিকল্পনা বিষয়ে।

নিজ দেশে বর্তমানে স্নাতকপূর্ব শিক্ষা কার্যক্রমে ভর্তি থাকা শিক্ষার্থীদের জন্যই মূলত এই বৃত্তির অনুমোদন দেয়া হবে।

প্রার্থীদেরকে হতে হবে কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও অন্যান্য উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একাগ্রচিত্ত, অনভিজাত বা সুবিধাবঞ্চিত স্নাতকপূর্ব শিক্ষার্থী যারা শিক্ষা কার্যক্রম, সামাজিক সম্পৃক্ততা ও পাঠ্যক্রম বহির্ভূত কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নেতৃত্ব প্রদর্শনে সক্ষম হয়েছেন। সকল প্রার্থীকে ভালো ইংরেজি জানতে হবে ও বলতে পারদর্শী হতে হবে। প্রার্থীদেরকে যুক্তরাষ্ট্র বা অন্য কোন দেশে থাকার অভিজ্ঞতা সামান্য বা একেবারে নেই এমন হতে হবে।

এই বৃত্তির আবেদনের জন্য যোগ্য বিবেচিত হতে আগ্রহী প্রার্থীদেরকে অবশ্যই:

  • অনধিক ২৫ বছর বয়সী (ন্যূনতম ১৮ বছর) বাংলাদেশী নাগরিক হতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র বা অন্য কোন দেশের দ্বৈত নাগরিক বা স্থায়ী অভিবাসী হতে পারবেন না।
  • বর্তমানে পূর্ণকালীন স্নাতকপূর্ব শিক্ষার্থী হিসাবে ভর্তি থাকতে হবে এবং কমপক্ষে এক সেমিস্টার সম্পন্ন অথবা নিজ প্রতিষ্ঠানে ফিরে আসার পর এক সেমিস্টার বাকি থাকতে হবে।
  • বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে অধ্যয়নে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য ইংরেজিতে লেখা ও কথা বলার ক্ষেত্রে যথাযথ দক্ষতা থাকতে হবে।
  • নেতৃত্বদানের দক্ষতার প্রমাণ থাকতে হবে।
  • কার্যক্রম শেষে বাংলাদেশে নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে আসার অঙ্গীকার থাকতে হবে।
  • যুক্তরাষ্ট্রে থাকার পূর্ব অভিজ্ঞতা সামান্য বা নেই এমন হতে হবে।
  • নিবিড় শিক্ষা কার্যক্রম এবং সমাজ সেবায় পুরোপুরি অংশগ্রহণে আগ্রহী ও সক্ষম হতে হবে।
  • আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয় জীবনের সাথে মানিয়ে নিয়ে এতে সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। বৈচিত্র্যময় প্রেক্ষাপট, ধর্ম ও গোত্র থেকে আসা আমেরিকানদের সাথে জায়গা ভাগাভাগি করে থাকার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে এবং বাংলাদেশ থেকে ভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক রীতির সাথে মানিয়ে নিতে সক্ষম হতে হবে।

আরো তথ্য পেতে এবং আবেদন করতে নিচের লিঙ্কগুলো দেখুন: www.worldlearning.org/ugrad

আবেদন প্যাকেজ

একটি পূর্ণ আবেদন প্যাকেজের মধ্যে নিম্নোক্ত ৩ টি জিনিস থাকতে হবে:

  • পূরণকৃত ও স্বাক্ষরিত একটি আবেদন ফরম যার সাথে থাকবে নিম্নোক্ত সহায়ক নথি-পত্র:
    1. আবেদনের প্রথম পাতায় সংযুক্ত একটি পাসপোর্ট আকৃতির ছবি।
    2. আপনার পাসপোর্টের উপাত্ত/ছবি সংযুক্ত পাতার কপি।
    3. বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নকালীন প্রতি বছরের দাপ্তরিক নম্বরপত্র , প্রযোজ্য ক্ষেত্রে প্রত্যয়িত অনুবাদসহ।
    4. জাতীয় সাধারণ মাধ্যমিক বিদ্যালয় সমাপনী পরীক্ষার দাপ্তরিক ফলাফল (এসএসসি/ এইচএসসি/ বিশ্ববিদ্যালয়ের নম্বরপত্র)
  • আপনার ব্যক্তিগত রচনা (৫০০ শব্দের মধ্যে) এবং অনলাইন ফরমে অন্তর্ভুক্ত প্রশ্নের লিখিত উত্তর (৪০০-৬০০ শব্দের মধ্যে)।
  • অধ্যাপক বা শিক্ষকদের কাছ থেকে দুটি সুপারিশপত্র।

প্রার্থী নির্বাচন প্রক্রিয়া

  1. আবেদনের তারিখ: আবেদন জমা দিতে হবে ১৫ই মার্চ, ২০২১ বা তার আগে। আবেদন অনলাইনে করতে হবে। কার্যক্রমে নিবন্ধনের জন্য এই লিঙ্কে যান: https://webportalapp.com/sp/login/n9bqhdalu1
  2. প্রার্থী বাছাই ও সাক্ষাৎকার: সংক্ষিপ্ত তালিকাভুক্ত প্রার্থীদেরকে আমেরিকান সেন্টারে সাক্ষাৎকারের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হবে।
  3. অতিরিক্ত শর্তাবলী: এই কার্যক্রমের জন্য আমেরিকান সেন্টার কর্তৃক মনোনীত প্রার্থীদেরকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং সেইসাথে ইংরেজি ভাষার দক্ষতা পরীক্ষা যেমন TOEFL বা IELTS পরীক্ষা সম্পন্ন করতে হবে। ইতোমধ্যে আপনার TOEFL বা IELTS-এর মেয়াদসম্পন্ন স্কোর যেমন 72iBT বা IELTS 6.0 থাকলে আবেদনের সাথে পেশ করুন। না থাকলে আপনি নিজে এই পরীক্ষার সময় নির্ধারণ করবেন না কেননা সকল সফল প্রার্থীর জন্য আমেরিকান সেন্টার এই পরীক্ষার ব্যবস্থা করবে। স্কোরের মেয়াদ থাকলেও এই কার্যক্রমে বিবেচনার ক্ষেত্রে কোন তারতম্য ঘটবে না।
  4. চূড়ান্ত অনুমোদন: প্রার্থীদের মনোনয়ন আমেরিকান সেন্টার কর্তৃক করা হলেও কার্যক্রমে অংশগ্রহণের বিষয়টি ওয়াশিংটন ডিসি থেকে চূড়ান্ত অনুমোদন ও তহবিল প্রাপ্যতার ওপর নির্ভরশীল।

আরো তথ্যের জন্য আমেরিকান সেন্টারে মিজ তাহনিয়া শাহিদ’র সাথে যোগাযোগ করুন। ফোন: (০২) ৫৫৬৬২৮২৮ অথবা ইমেইল: ShahidTX@state.gov