চীনের উইঘুর আন্দোলনকর্মী এবং শিনজিয়াংয়ের অন্তরীণ কেন্দ্র ফেরত ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যদের হয়রানি

প্রেস বিবৃতি
পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইকেল আর পম্পেও , পররাষ্ট্র মন্ত্রী
নভেম্বর ৫, ২০১৯

উইঘুর মুসলিম আন্দোলনকর্মী এবং শিনজিয়াংয়ের অন্তরীণ শিবির থেকে বের হয়ে নিজেদের অভিজ্ঞতার কথা জনসমক্ষে প্রচারকারী ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যদের চীন সরকার কর্তৃক হয়রানি, কারাবন্দি অথবা যথেচ্ছ আটক করার খবরে যুক্তরাষ্ট্র গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। কিছু ক্ষেত্রে এ হয়রানি, নির্যাতনের ঘটনাগুলো ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের অল্পসময় পরেই।

পররাষ্ট্র দপ্তরের পক্ষে আমি চীনা কমিউনিস্ট পার্টির দমনমূলক কর্মসূচির প্রত্যক্ষ শিকার হওয়া এসব সাহসী ব্যক্তি এবং তাদের পরিবারের প্রতি আমাদের আন্তরিক সমবেদনা জানাতে চাই। তাদের মধ্যে রয়েছেন ফারাকাত জাওদুত, আলফ্রেড এরকিন এবং জুমরত দাউতসহ অনেকে। অতি সম্প্রতি জুমরত দাউত জানতে পেরেছেন, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে শিনজিয়াংয়ে চীনা কর্তৃপক্ষের হাতে একাধিকবার আটক ও জিজ্ঞাসাবাদের শিকার হওয়া তার পিতা সম্প্রতি অজ্ঞাত পরিস্থিতিতে মারা গেছেন।

ধর্মীয় স্বাধীনতা দমনসহ চীন সরকারের মানবাধিকার লঙ্ঘনের সত্যিকার চিত্র প্রকাশ করার জন্য উইঘুর আন্দোলনকর্মীদের সাহসের সঙ্গে ও নির্ভয়ে  কথা  বলার বিষয়টি খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা চীনের বাইরে বসবাসরত উইঘুরদের হয়রানি বন্ধ করা, নির্বিচারে আটককৃত সবাইকে মুক্তি দেওয়া এবং পরিবারের সদস্যদের তাদের সঙ্গে নির্বিঘ্নে যোগাযোগ করার সুযোগ দেওয়ার জন্য বেইজিংয়ের প্রতি আবারও আহ্বান জানাচ্ছি।