যুক্তরাষ্ট্রের সমাজের রূপকার এশিয়ান আমেরিকান আর প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জবাসী [ছবির গ্যালারী]

শেয়ার আমেরিকা
সেইত সেরকান গুরবুজ – ১৪ই মে, ২০২০

 

মে হচ্ছে এশিয়ান /প্যাসিফিক আমেরিকান ঐতিহ্য মাস। এই ছবি গ্যালারিতে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সমাজে অবদান রাখা অগণিত এশিয়ান আমেরিকান আর প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপপুঞ্জবাসীর কয়েকজনের নমুনা ।

পাহাড়ি পরিবেশে দাঁড়িয়ে থাকা ব্যক্তির দুটি ছবি (লাইব্রেরি অব কংগ্রেস / আলফ্রেড এ. হার্ট)

এই উনিশ শতকের স্টেরিওগ্রাফে (১৮৬৫ সালের দিকের ছবি) দেখা  যাচ্ছে কাঁধে খুঁটি নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা এক চীনা রেলপথ নির্মাণ কর্মীকে।

যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিম ও পূর্ব উপকূলকে যুক্ত করা ট্র্যান্সকন্টিনেন্টাল রেলপথের সেন্ট্রাল প্যাসিফিক লাইন তৈরি করতে প্রায় ১২০০০ চীনা শ্রমিককে নিয়োগ করা হয়েছিল।কঠিন পাহাড়ের মধ্য দিয়ে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে টানেল তৈরি করার মতো বিপদজনক সব কাজ করেছিলেন তারা।


ওপরের ছবিতে দেখা যাচ্ছে ১৯৫৯ সালের ২৯ শে জুলাই হাওয়াই থেকে প্রতিনিধি পরিষদের নির্বাচনে জয়লাভের পরে ড্যানিয়েল ইনৌই তার স্ত্রী ম্যাগিকে আলিঙ্গন করছেন। ইনৌই  জাপানি বংশোদ্ভূত প্রথম কংগ্রেস সদস্য। তিনি পরে সিনেট সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। সে পদে  তিনি ২০১২  সালে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর ৪৪২ তম রেজিমেন্টাল কমব্যাট টিম এর হয়ে দায়িত্বপালনের সময় তার ডান বাহু হারান ইনৌই। ওই টিম এর সদস্য সেনারা ছিলেন জাপানি বংশোদ্ভূত।ইনৌই অনেক সামরিক পুরস্কার জিতেছেন। ২০১৩ সালে তাকে মরণোত্তর প্রেসিডেনশিয়াল মেডেল অব ফ্রিডম সম্মাননা দেওয়া হয়।এর মাধ্যমে ড্যানিয়েল ইনৌই হন মেডেল অব ফ্রিডম এবং মেডেল অব অনার উভয় খেতাবজয়ী প্রথম ও একমাত্র (এখন পর্যন্ত)সিনেটর।


(© চার্লস ওম্মানি/ গেটি ইমেজেস)

পুরস্কারপ্রাপ্ত সম্প্রচার সাংবাদিক অ্যান কারি (বাঁয়ে)২০০৫ সালের ১২ জুলাই দক্ষিণ আফ্রিকার কেপটাউনের কাছে খাইলিতশায় একটি স্কুলের শ্রেণিকক্ষে লরা বুশের সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন।

গুয়ামে জন্মগ্রহণকারী কারি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া ও জাপানের সুনামি এবং হাইতির ২০১০ সালের ভূমিকম্পসহ বিশ্বজুড়ে অসংখ্য দ্বন্দ্বসংঘাত এবং মানবিক বিপর্যয়ের ওপর রিপোর্ট করেছেন।


(টেড এস ওয়ারেন / এপি ইমেজেসে)

মাইক্রোসফ্ট কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সত্য নাদেলা  ২০১৮ সালে ওয়াশিংটনের বেলভ্যুতে মাইক্রোসফ্ট শেয়ারহোল্ডারদের বার্ষিক বৈঠকে একটি প্রশ্ন শুনছেন।

‘ফরচুন’ সাময়িকী সত্য নাদেলাকে ২০১৯ এর বর্ষসেরা ব্যবসায়ী ব্যক্তিত্ব মনোনীত করে।‘ফরচুন’ এজন্য নাদেলার ‘ফলাফলমূখী, দলভিত্তিক নেতৃত্ব’ কৌশলের কথা উল্লেখ করে।সত্য নাদেলার আদিনিবাস ভারতের হায়দরাবাদ।


(ইউএস এয়ার ন্যাশনাল গার্ড/ টেকনিক্যাল সার্জেন্ট জন /হিউয়েল)

১৪২ তম ফাইটার উইংয়ের ভাইস কমান্ডার কর্নেল জেফ হোয়াং তার এফ-১৫ সি ঈগল যুদ্ধবিমানের সিঁড়িতে দাঁড়িয়ে। ২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনী থেকে শেষ উড্ডয়ন ও অবসর গ্রহণের প্রাক্কালে তোলা ছবি।  বিমানটিতে আঁকা রয়েছে দুটি সবুজ তারা, যা তার চূড়ান্ত উড্ডয়নের জন্য যুক্ত করা হয়েছিল। তারা দুটি ১৯৯৯ সালের ২৬ মার্চ কসোভোর আকাশে তার গুলি করে ভূপাতিত করা দুটি মিকোয়ান মিগ -২৯  এর প্রতীক। এই কোরিয়ান-আমেরিকান পাইলটকে ১৯৯৯ সালের ম্যাকে ট্রফি দেওয়া হয়।  যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীতে ‘বছরের সবচেয়ে কৃতিত্বপূর্ণ উড্ডয়ন’ এর জন্য ওই পুরস্কার দেওয়া হয়। অপারেশন অ্যালাইড ফোর্সের সমর্থনে এফ-১৫ সি বিমান নিয়ে যুদ্ধ করার সময় পরপর দুটি শত্রু বিমান ধ্বংস করে ওই পুরস্কার জিতেছিলেন জেফ হোয়াং।


(© জন ম্যাকডনেল / দি ওয়াশিংটন পোস্ট / গেটি ইমেজেস)

চীনা বংশোদ্ভূত আমেরিকান স্থপতি ও নকশাবিদ মায়া লিন ১৯৮২ সালের ১২ জুলাই ওয়াশিংটনে ‘ভিয়েতনাম ভেটেরান্স মেমোরিয়াল নির্মাণের স্থানটি পরিদর্শন করেন।

১৪ শ’র বেশি প্রতিদ্বন্দ্বীকে হারিয়ে স্মৃতিস্তম্ভটির নকশা প্রতিযোগিতা জিতেছিলেন লিন।। লিনের প্রস্তাবিত নকশাটি মনোনীত হওয়ার সময় তার বয়স মাত্র একুশ বছর এবং তিনি তখনও ইয়েল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী।


(© ইরফান খান / লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস / গেটি ইমেজেস)

শ্রীরাচা হট সস উৎপাদনকারী হুই ফং ফুডস ইনক. এর মালিক ডেভিড ট্রান ২০১৫ সালে একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিচেছন। ট্রান ১৯৭৯ সালে শরণার্থী হিসাবে হুই ফং নামের এক তাইওয়ানি মালবাহী জাহাজে চড়ে ভিয়েতনাম ত্যাগ করেন। এ কারণে তিনি লস অ্যাঞ্জেলেসে এক বছর পরে হুই ফং নামেই একটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন।